Bangladesh Icon
আইকন সংবাদ:

লায়ন মোঃ মোজাম্মেল হক ভূঁইয়া

প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি, হাজী মোঃ এখলাছউদ্দিন ভূঁইয়া উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজ লায়ন মোঃ মোজাম্মেল হক ভূঁইয়া কারিগরি স্কুল এন্ড কলেজ


দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে যাঁরা ইতিবাচক ভূমিকা পালন করে উন্নয়নের গতিধারাকে প্রবহমাণ রেখেছেন তাঁদেরই একজন জনাব মোজাম্মেল হক ভূঁইয়া। সম্পূর্ণ ধীরস্থীর, বিশ্বস্ত ও আত্মপ্রত্যয়ী ব্যক্তিত্ব এবং বিশিষ্ট সমাজসেবক আলহাজ্ব লায়ন মোঃ মোজাম্মেল হক ভূঁইয়া বেশির ভাগ সময়ই নিজেকে জনকল্যাণে ব্যস্ত রাখেন এবং সমাজের প্রত্যেকটি স্তরে সেবামূলক কাজে নিজেকে সম্পৃক্ত করেন।

দূরদর্শী, উদ্যমী, প্রাণবন্ত ও গতিশীল হৃদয়বান মানুষটি নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জ উপজেলার যাত্রামুড়া গ্রামের এক বিশিষ্ট মুসলিম ভূঁইয়া পরিবারে ১৯৫৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা হাজী মোঃ এখলাছউদ্দিন ভূঁইয়া, মাতা জোবেদা বেগম। মোজাম্মেল হক ভূঁইয়া স্থানীয় বাওয়ানী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করে ঢাকা কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক ও সরকারি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। লেখাপড়া শেষ করে সারুলিয়া এমএ ছাত্তার উচ্চ বিদ্যালয়ে ১৭ বছর শিক্ষকতা করেন।

‘শিক্ষাই জীবনের উন্নতির মূল চাবিকাঠি’ এই মূলমন্ত্রকে মনে ধারণ করে শিক্ষাকে ছড়িয়ে দেওয়ার ও শিক্ষিত সমাজ গড়ে তোলার এক সুনিপুণ কারিগর জনাব মোজাম্মেল হক ভূঁইয়া। শিক্ষকতার মাধ্যমে জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে নিজের কর্মময় জীবনকে যিনি বিকশিত করেছেন শিক্ষার ক্ষেত্রে শিক্ষাকে আরও বেগবান, সবার মাঝে শিক্ষাকে পৌঁছে দেওয়া ও সমাজের ছেলে-মেয়ে ও তরুণ-তরুণীদের শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ সৃষ্টি করে দেওয়ার লক্ষ্যে ১৯৯৫ সালে নিজ এলাকায় হাজী মোঃ এখলাছউদ্দিন ভূঁইয়া কিন্ডারগার্টেন, মারুফ-শারমীন কিন্ডারগার্টেন স্কুল, হাজী মোঃ এখলাছউদ্দিন ভূঁইয়া উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজ এবং লায়ন মোঃ মোজাম্মেল হক ভূঁইয়া কারিগরি স্কুল এন্ড কলেজ প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি শিক্ষার উন্নয়নে বহুকাল যাবৎ নিরলস শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন। শিক্ষা ক্ষেত্রে তাঁর জ্ঞানের সঠিক পরাগায়ন সমাজের ফুটন্ত ফুল তরুণ সমাজকে প্রস্ফুটিত করেছে। উচ্চ শিক্ষায় সঠিক পথে এগিয়ে যেতে অভিভাবকের মতো অনুপ্রেরণা যুগিয়েছেন। শিক্ষার প্রতি সচেতনতা বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে তিনি গ্রামে গ্রামে দরিদ্র জনগোষ্ঠির দ্বারে দ্বারে ঘুরে বুঝিয়ে ছেলেমেয়েদের স্কুলমুখী করেছেন। তিনি নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁ, আড়াইহাজার, সিদ্ধিরগঞ্জ, রূপগঞ্জ উপজেলার সরকারি পর্যায়ে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও মাদ্রাসার ছাত্র/ছাত্রীদের সমন্বয়ে অনুষ্ঠিত শিক্ষামূলক কাজে শতাধিক প্রতিষ্ঠানের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন।

অর্জিত শিক্ষার সংরক্ষণ, গণশিক্ষার প্রসার তথা সর্বোপরি আর্থসামাজিক উন্নয়নে ইউনেস্কো কর্তৃক গ্রন্থাগার বিষয়ক মেনুফেস্টোতে ‘গ্রন্থাগার কাঙ্খিত শিক্ষার পূর্বশর্ত ও জনগণের বিশ্ববিদ্যালয়’ নামে অভিহিত করা হয়েছে। এ লক্ষ্যকে সামনে রেখে মোঃ মোজাম্মেল হক ভূঁইয়া ঢাকা কলেজ, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ, লায়ন্স ক্লাব-ঢাকা, সাভার ক্যান্টনমেন্ট-সাভার, নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগারে লাইব্রেরি, নারায়ণগঞ্জ জজকোর্টে গ্রান্থাগার প্রতিষ্ঠাসহ ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, বরিশাল ও বিভিন্ন জেলায় ইতিমধ্যে ৩৫টি গ্রন্থাগার প্রতিষ্ঠা করেছেন। তাছাড়া ৫০টির অধিক মাধ্যমিক/ উচ্চ মাধ্যমিক/ মাদ্রাসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দরিদ্র ছাত্রদের বই-খাতা, কলম ইত্যাদি শিক্ষা উপকরণ সরবরাহ করেন। তিনি শিক্ষাকে মানুষের জাতি গঠনের প্রক্রিয়াতে ছড়িয়ে দেওয়ার এক পরিশ্রমী ও পারঙ্গম স্থপতি।

শিক্ষা জাতি গঠনের প্রধান উপাদান এই মূল বিষয়ই জনাব মোঃ মোজাম্মেল হককে বিশেষভাবে অনুপ্রাণিত করেছে। সভ্য সমাজ তথা উন্নত জাতি গঠনে ও বিদ্যার প্রদীপ শিখা ছড়িয়ে সমাজকে আলোকিত করার এক অনন্য প্রতিভাবান ব্যক্তি মোজাম্মেল হক ভূঁইয়া। তাঁর সমাজসেবামূলক কাজ বিভিন্ন দিকে বিস্তৃত। তিনি জনগণের যাতায়াতে সাঁকো স্থাপন, যাতায়াত অনুপযোগী রাস্তা মেরামতসহ বিভিন্ন ধরনের সংস্কার কাজ করে থাকেন। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে জনসাধারণের সুবিধার্থে দুর্ঘটনা রোধকল্পে দুইটি আন্ডারপাস নিমার্ণ করেন। উল্লিখিত মহাসড়কের পাশে যাত্রীদের সুবিধার জন্য ৪৬টি যাত্রী ছাউনি করে দিয়েছেন।

তাঁর ছোট্ট দুই নয়নমণি মারুফ ও শারমীন বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে মারা যান। তাদের দুর্ঘটনা থেকে রাস্তায় আন্ডারপাস নির্মাণ ও যাত্রী ছাউনি নির্মাণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। ছোটবেলা থেকেই তিনি পরোপকারী মনোভাবে বেড়ে উঠেছেন। কারও অসুবিধা দেখলে সহযোগিতার মন নিয়ে এগিয়ে যান। তিনি নিজ অর্থায়নে মায়ের নাম গড়ে তুলেছেন ‘জোবেদা জনকল্যাণ ট্রাস্ট’ নামে সাহায্য সংগঠন। দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থী ও বিধবাদের আত্মনির্ভরশীল করার লক্ষ্যে প্রতি বছর কম্পিউটার ও সেলাই মেশিন প্রদান করে থাকেন। ওই সংস্থার মাধ্যমে দরিদ্র জনগণের মাঝে তাদের সচ্ছলতা ফিরিয়ে আনতে অক্লান্ত পরিশ্রম করেন।

ধর্মের প্রতি গভীর আনুগত্য ও ধর্মীয় অনুশাসনে নিজেকে একজন মোমিন বান্দা হিসেবে সৃষ্টিকর্তার নৈকট্য লাভে সর্বদাই মশগুল। তিনি কন্যাদায়গ্রস্ত পিতা বা বিধাব মায়ের পাশে অত্যন্ত আন্তরিকভাবে এগিয়ে যান। বিভিন্ন জায়গায় পানির কষ্ট দূরীকরণের জন্য সাবমার্সিবল পাম্প বসিয়ে পানির ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। তিনি ধর্মপ্রাণ মুসলিম। বিনা খরচে হজ্বের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা, গাছের চারা বিতরণ করে বনায়নে উৎসাহিত করা ও দরিদ্র কর্মক্ষম মানুষদের আত্মনির্ভরশীল হওয়ার জন্য রিকশা ও রিকশাভ্যান বিতরণ তাঁর সেবামূলক কাজেরই অংশ। শীতের সময় শীত নিবারণের জন্য অসহায় ও নিম্ন আয়ের জনগণের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন।

তিনি বিভিন্ন দেশের সভ্যতা, কৃষ্টি, শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক অভিজ্ঞতা লাভের উদ্দেশ্যে পৃথিবীর সর্বমোট ৩৫টি দেশে ভ্রমণ করেন। দেশগুলোর মধ্যে- ভুটান, চীন, ভারত, জাপান, লেবানন, মালয়েশিয়া, মায়ানমার, নেপাল, ফিলিপাইন, রাশিয়া, সৌদিআরব, সিঙ্গাপুর, দক্ষিণ কোরিয়া, শ্রীলংকা, থাইল্যান্ড, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ভিয়েতনাম, ইয়েমেন, মিশর, মরিশাস, ফিনল্যান্ড, ফ্রান্স, ইতালি, জার্মানি, নরওয়ে, সুইজারল্যান্ড, সুইডেন, ভ্যাটিকান সিটি, কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া অন্যতম।

জ্ঞান সাধনার একনিষ্ঠ ব্যক্তি ও বড় মনের কোমল হৃদয় নিয়ে সমাজ গঠনে যিনি নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন তিনি জনাব লায়ন মোঃ মোজাম্মেল হক ভূঁইয়া। তাঁর লেখা কয়েকটি বই রয়েছে- শত বাধা পেরিয়ে শ্রেষ্ঠ যারা’ প্রকাশক এস.এ. মল্লিক, আল আমিন প্রকাশনী-২০১৩। ‘কাছ থেকে দেখা’  প্রকাশক সরকার আহমদ হোসেন চাঁদ, মারুফ-শারমীন স্মৃতি প্রকাশনী-২০১৩ কর্তৃক মুদ্রিত ও প্রকাশিত। মানুষের জন্য তাঁর অবদান সাধারণ মানুষের হৃদয় ছুঁয়ে আছে। বড় মন এবং সামাজিক দায়িত্ববোধ ও অঙ্গীকার থেকে মানুষের জন্য  অনেক কল্যাণমূলক সফল কাজ করেছেন। তিনি সকলের কাছে একজন প্রিয় ব্যক্তিত্ব। তিনি সামাজিক উন্নয়ন কাজের অনুকরণীয়। জনগণের  হৃদয়ে তাঁর নাম মমতার চাদরে মোড়ানো থাকবে। চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে তার কীর্তি।

পাঠাগার আন্দোলনে বিশেষ অবদান রাখায় সামাজিকভাবে নানা সংগঠন তাঁকে বিভিন্ন অবস্থান থেকে সম্মানিত করেছে। তিনি লায়ন্স ক্লাব অব ঢাকা ফ্রিডমের প্রতিষ্ঠাতা। সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের কমিটির সদস্য। জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সদস্য। জেলা লিগ্যাল এইডের সদস্য। জেলা মাদকদ্রব্য প্রতিরোধ কমিটির সদস্য। শ্রেষ্ঠ বিদ্যোৎসাহী ও সমাজকর্মী (বিভাগীয় পর্যায়)। জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের আঞ্চলিক সভাপতি ও আজীবন সদস্য।

জনাব লায়ন সেবামূলক কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ সরকারী ও বেসরকারী পর্যায়ে শতাধিক প্রতিষ্ঠান থেকে সংবর্ধনা ও পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। এসবের মধ্যে ডক্টর মুহম্মদ শহীদুল্লাহ স্বর্ণপদক-২০০৮, রুরাল জার্নালিস্ট ফাউন্ডেশন প্রদত্ত নওয়াব সলিমুল্লাহ স্বর্ণপদক-২০০৯, ঐতিহ্য ফাউন্ডেশন কর্তৃক প্রদত্ত মওলানা ভাসানী স্বর্ণপদক-২০০৯, সমাজ সেবায় মাপসাস কর্তৃক প্রদত্ত মাদার তেরেসা অ্যাওয়ার্ড-২০১০, মহাত্মা গান্ধী পুরস্কার-২০১১, সমাজ সেবায় মাপসাস কর্তৃক প্রদত্ত জামাল স্মৃতি পুরস্কার, পাঠাগার ও শিক্ষা বিস্তারে অবদান রাখায় সুধীজন কর্তৃক শ্রেষ্ঠ বিদ্যোৎসাহী সমাজকর্মী পদক-২০০৮, জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ কর্তৃক ড. কুদরত-ই-খুদা স্বর্ণপদক-২০১০ উল্লেখযোগ্য।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান BANGLADESH ICON আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ আতিউর রহমান বেগম রোকেয়া মোস্তাফা জব্বার ভাষা শহিদ সজীব ওয়াজেদ জয় তাজউদ্দীন আহমদ শেরে বাংলা ফজলুল হক মাওলানা ভাসানী  প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার বেগম সুফিয়া কামাল শেখ হাসিনা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হোসেন শহিদ সোহরাওয়ার্দি কাজী নজরুল ইসলাম মাস্টারদা সূৰ্য সেন ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ মণি সিংহ স্যার ফজলে হাসান আবেদ  সালমান এফ রহমান সুফী মুহাম্মদ মিজানুর রহমান মোরশেদ আলম এমপি সৈয়দ মঞ্জুর এলাহী আহমেদ আকবর সোবহান জয়নুল হক সিকদার দীন মোহাম্মদ আজম জে. চৌধুরী প্রফেসর মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন সাইফুল আলম মাসুদ আলহাজ্ব এম এম এনামুল হক খলিলুর রহমান এ কে এম রহমত উল্লাহ্ ইফতেখার আহমেদ টিপু শেখ কবির হোসেন এ কে আজাদ ডাঃ মোমেনুল হক আলহাজ্ব মোঃ হারুন-উর-রশীদ কাজী সিরাজুল ইসলাম নাছির ইউ. মাহমুদ ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আজিজ শেখ ফজলে ফাহিম প্রফেসর ড. কবির হোসেন তালুকদার মোঃ হাবিব উল্লাহ ডন রূপালী চৌধুরী হেলেন আখতার নাসরীন মনোয়ারা হাকিম আলী নাসরিন সরওয়ার মেঘলা প্রীতি চক্রবর্তী মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির ক্যাপ্টেন তাসবীরুল আহমেদ চৌধুরী এহসানুল হাবিব আলহাজ্জ্ব জাহাঙ্গীর আলম সরকার আলহাজ্ব খন্দকার রুহুল আমিন তানভীর আহমেদ ড. বেলাল উদ্দিন আহমদ মোঃ শফিকুর রহমান সেলিম রহমান মাফিজ আহমেদ ভূঁইয়া  মোঃ ওবায়েদ উল্লাহ আল মাসুদ  শহিদ রেজা আব্দুর রউফ জেপি এডভোকেট ইকবাল আহমদ চৌধুরী এ কে এম সরওয়ারদি চৌধুরী ড. এম. মোশাররফ হোসেন মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুন লায়ন মোঃ মোজাম্মেল হক ভূঁইয়া মোঃ মিজানুর রহমান সায়েম সোবহান আনভীর মামুন-উর-রশিদ বি এম ইউসুফ আলী মোঃ জামিরুল ইসলাম ডক্টর হেমায়েত হোসেন মোঃ শাহ আলম সরকার ফারজানা চৌধুরী এম. সামসুজ্জামান মেজর পারভেজ হাসান (অব.) এম এ মতিন সৈয়দ মোহাম্মদ কামাল মাসুদ পারভেজ খান ইমরান ড. এম এ ইউসুফ খান কাজী সাজেদুর রহমান ড. হাকীম মোঃ ইউছুফ হারুন ভূঁইয়া আলহাজ্ব মীর শাহাবুদ্দীন মোঃ মুনতাকিম আশরাফ (টিটু) মোঃ আবদুর রউফ কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ আব্দুল মাতলুব আহমাদ মোঃ মজিবর রহমান মোহাম্মদ নূর আলী সাখাওয়াত আবু খায়ের মোহাম্মদ আফতাব-উল ইসলাম মোঃ সিরাজুল ইসলাম মোল্লা এমপি প্রফেসর ড. আবু ইউসুফ মোঃ আব্দুল্লাহ মোঃ জসিম উদ্দিন বেনজীর আহমেদ মিসেস তাহেরা আক্তার পারভীন হক সিকদার নাসির এ চৌধুরী হাফিজুর রহমান খান ড. মোহাম্মদ ফারুক কাইউম রেজা চৌধুরী মোঃ সবুর খান মাহবুবুল আলম মোঃ হেলাল মিয়া সেলিমা আহমাদ নজরুল ইসলাম ড. এ এস এম বদরুদ্দোজা ড. হায়দার আলী মিয়া ইঞ্জিনিয়ার গুলজার রহমান এম জামালউদ্দিন মোঃ আব্দুল হামিদ মিয়া মোঃ হাবিবুর রহমান মোঃ মুহিব্বুর রহমান চৌধুরী মোহাম্মদ নুরুল আমিন জিয়াউর রহমান ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী শ্যামল দত্ত জ ই মামুন আনিসুল হক সামিয়া রহমান মুন্নি সাহা আব্বাসউদ্দীন আহমদ নীলুফার ইয়াসমীন ফিরোজা বেগম শাহ আব্দুল করিম ফরিদা পারভীন সরদার ফজলুল করিম আনিসুজ্জামান আখতারুজ্জামান ইলিয়াস হুমায়ূন আহমেদ সেলিম আল দীন জহির রায়হান বুলবুল আহমেদ রওশন জামিল সৈয়দ হাসান ইমাম হেলেনা জাহাঙ্গীর অঞ্জন রায় অধ্যক্ষ আব্দুল আহাদ চৌধুরী অধ্যাপক আবু আহমেদ অধ্যাপক  আবু সাইয়িদ অধ্যাপক আমেনা মহসীন অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদ অধ্যাপক জয়নাল আবদিন এমপি অধ্যাপক ড. আরিফুর রহমান অধ্যাপক ড. আব্দুল মতিন পাটোয়ারী অধ্যাপক ড. ইজাজ হোসেন অধ্যাপক ড. এ কে আজাদ চৌধুরী অধ্যাপক ড. এ কে আব্দুল মোমেন অধ্যাপক ড. এম এ মান্নান অধ্যাপক ড. এম এ হাকিম অধ্যাপক ড. এম শমসের আলী অধ্যাপক ড. দিলারা চৌধুরী অধ্যাপক ড. শাহেদা ওবায়েদ অধ্যাপক ড. সদরুল আমিন অধ্যাপক ড. হাফিজ জি. এ. সিদ্দিকী অধ্যাপক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন অধ্যাপক তৌহিদুল আলম অধ্যাপক ডা. বরেন চক্রবর্তী অধ্যাপক ডা. মতিউর রহমান অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ অধ্যাপক ডা. মোঃ হাবিবে মিল্লাত এমপি অধ্যাপক মেহতাব খানম অধ্যাপিকা অপু উকিল এমপি অধ্যাপক ড. হোসনে আরা বেগম আইয়ুব বাচ্চু আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসাইন আনিস এ. খান আনোয়ার উল আলম চৌধুরী পারভেজ আনোয়ার হোসেন মঞ্জু আবদুল বাসেত মজুমদার আবু সাঈদ খান আবুল কাশেম মোঃ শিরিন আবুল কাসেম হায়দার আবুল মাল আব্দুল মুহিত আব্দুল আউয়াল মিন্টু আব্দুল মতিন খসরু এমপি আবদুল মুকতাদির আব্দুল মুয়ীদ চৌধুরী আব্দুস সালাম মুর্শেদী আমির আমির হোসেন আমু এমপি আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী আয়শা খানম আ স ম আবদুর রব আ স ম ফিরোজ আসাদুজ্জামান খান কামাল আসিফ ইব্রাহীম আলী রেজা ইফতেখার আ হ ম মুস্তফা কামাল এমপি ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন ইনায়েতুর রহিম ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক এমপি ইঞ্জিনিয়ার নুরুল আকতার ইমদাদুল হক মিলন উপধ্যক্ষ মোঃ আব্দুস শহীদ এমপি এ এইচ এম নোমান এ এইছ আসলাম সানি এ কে ফাইয়াজুল হক রাজু এডভোকেট তানবীর সিদ্দিকী এডভোকেট ফজিলাতুন নেসা বাপ্পি এমপি এডভোকেট মোঃ ফজলে রাব্বী এমপি এনাম আলী এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি এম এ সবুর এম নাছের রহমান এয়ার কমডোর ইসফাক এলাহী চৌধুরী (অব.) এস এম ফজলুল হক ওয়াহিদা বানু কবরী সারোয়ার কাজী ফিরোজ রশীদ কেকা ফেরদৌসী কে. মাহমুদ সাত্তার খন্দকার রুহুল আমিন খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ খালেদ মুহিউদ্দীন খুশি কবির জুনাইদ আহমেদ পলক জোবেরা লিনু টিপু মুন্সী ড. আবুল বারকাত ড. কাজী কামাল আহমদ ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ ড. তৌফিক এম. সেরাজ ড. বদিউল আলম মজুমদার ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন ড. সাজ্জাদ জহির ড. সা’দত হুসাইন মেজর জেনারেল সৈয়দ মুহাম্মদ ইব্রাহীম (অব.) বীর প্রতীক মেজর জেনারেল হেলাল মোর্শেদ খান (অব.) বীর বিক্রম মেহের আফরোজ চুমকি মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ মিথিলা ফারজানা মীর নাসির হোসেন মীর মাসরুর জামান মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দীন মীর শওকাত আলী বাদশা মুনিরা খান মুহাম্মদ আজিজ খান মোহাম্মদ নূর আলী মোঃ গোলাম মাওলা রনি এমপি মোঃ জসিম উদ্দিন মসিউর রহমান রাঙ্গা রাশেদ খান মেনন রাশেদা কে চৌধুরী লে. কর্ণেল মোঃ ফারুক খান (অব.) শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানি শাইখ সিরাজ শাওন মাহমুদ শাজাহান খান এমপি শামসুজ্জামান খান শাহীন আনাম শারমীন মুরশিদ শুভ্র দেব শিবলী মোহাম্মদ শিরীন আখতার সরদার সাখাওয়াত হোসেন বকুল স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন সাঈদ খোকন সাকিব আল হাসান সাগুফতা ইয়াসমিন এমেলী সাব্বির হাসান নাসির সালমা খান সালাউদ্দিন কাশেম খান সিগমা হুদা সিলভীয়া পারভীন লিনি সুকুমার রঞ্জন ঘোষ সুরাইয়া জান্নাত সুলতানা কামাল সৈয়দ আখতার মাহমুদ সৈয়দ আবুল মকসুদ সৈয়দ মার্গুব মোর্শেদ সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান হাসানুল হক ইনু ড. সিনহা এম এ সাঈদ অধ্যাপক ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন ড. হামিদুল হক ড. হোসেন জিল্লুর রহমান ড. হোসেন মনসুর ড. রেজোয়ান সিদ্দিকী ডা. অরূপরতন চৌধুরী ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী ডা. জাফরুল্লাহ্ চৌধুরী ডা. জোনাইদ শফিক ডা. মোঃ আব্দুল মতিন ডা. লুৎফর রহমান ডা. সরদার এ নাঈম ডা. সাঈদ আহমেদ সিদ্দিকী ডা. সামন্ত লাল সেন তোফায়েল আহমেদ তালেয়া রেহমান দিলরুবা হায়দার নজরুল ইসলাম খান নজরুল ইসলাম বাবু নবনীতা চৌধুরী নাঈমুর ইসলাম খান নমিতা ঘোষ নাঈমুর রহমান দূর্জয় নাসরীন আওয়াল মিন্টু নুরুল ইসলাম সুজন এমপি নুরুল কবীর নিলোফার চৌধুরী মনি এমপি প্রকোশলী তানভিরুল হক প্রবাল প্রফেসর মেরিনা জাহান ফকির আলমগীর ফরিদ আহমেদ বেগম মতিয়া চৌধুরী বিগ্রেডিয়ার জেনারেল এম সাখাওয়াত হোসেন (অব.) ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ ব্যারিস্টার আমীর-উল ইসলাম ব্যারিস্টার তানিয়া আমীর ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা ব্যারিস্টার সারা হোসেন ভেলরি এ টেইলর মতিউর রহমান চৌধুরী মনজিল মোরসেদ মমতাজ বেগম এমপি মামুন রশীদ মাহফুজ আনাম মাহফুজ উল্লাহ